উত্তরবঙ্গে আর্ট কলেজ প্রয়োজন, আশার আলো দেখালেন যোগেন চৌধুরী

0
557

দৈনিক কলকাতা ডেস্ক

গোটা বিশ্বে এখন মহামারি সৃষ্টি করেছে প্রাণঘাতী কোভিড-১৯। পরিস্থিতি করে স্বাভাবিক হবে তা কেউ বলতে পারছেন না। লকডাউনের কারণে অন্যান্যদের মতো শিল্প জগতেও নানা সমস্যা তৈরি হয়েছে। বিভিন্ন প্রদর্শনী সহ অন্যান্য অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হয়েছে। প্রায় প্রত্যেক শিল্পী বাড়িতে রয়েছেন। পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন। অনেকে আবার সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তাদের অনুরাগীদের সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রাখছেন। ফেসবুক লাইভের মাধ্যমেও অনেক জায়গায় আর্ট ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছে। তবে সেটা অনেকটা দুধের সাধ ঘোলে মেটানোর মতো। আপাতত চিত্রশিল্পী থেকে শুরু করে শিল্প প্রেমী- সবাই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। লকডাউনের মধ্যেই BIAFS-এর উদ্যোগে আয়োজিত একান্ত আলাপচারিতায় নানা বিষয়ে নিজের মতামত জানালেন দেশের অন্যতম কিংবদন্তী চিত্রশিল্পী যোগেন চৌধুরী। কলকাতা থেকে টেলিফোনে তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন উত্তরবঙ্গের স্বনামধন্য শিল্পী দীপায়ন ঘোষ। এই আলাপচারিতায় যোগেনবাবু তার শিল্প জীবনের নানা দিক তুলে ধরেন।

উত্তরবঙ্গে আর্ট কলেজের দাবি দীর্ঘদিনের। সেটাই ছিল এই দুই শিল্পীর কথোপকথনের অন্যতম মূল বিষয়। বর্ষীয়ান চিত্রশিল্পী যোগেনবাবু জানিয়েছেন, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবগত। এবং এই ব্যাপারে ইতিমধ্যে তিনি উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। উত্তরবঙ্গে প্রতিভার অভাব নেই। যেসমস্ত উদীয়মান প্রতিভা শিল্প ক্ষেত্রে তাদের কেরিয়ার তৈরি করতে চান, তাদের হয় শান্তিনিকেতন বা কলকাতায় ছুটতে হয়। বলাই বাহুল্য, সেটা সবার ক্ষেত্রে সম্ভব হয় না। তাই উত্তরবঙ্গে যে অবিলম্বে একটা আর্ট কলেজ হওয়া উচিত, সেটা এক কথায় স্বীকার করে নিয়েছেন যোগনবাবু। তিনি বলেন, আমি একটা উদ্যোগ নিচ্ছি। কিন্তু করোনা এসে আপাতত সেটাকে বন্ধ করে দিল। আমাদের একটা আর্ট জার্নাল আছে। সেখানে আমি এই বিষয়টা নিয়ে লিখেছি। আমাদের শেষ ইস্যুর বিষয় ছিল আর্ট এডুকেশন। সেখানে আমি লিখেছি উত্তরবঙ্গে কোনো আর্ট ইন্সটিটিউট নেই। ওখান থেকে সবাই কলকাতা, শান্তিনিকেতনে পড়াশুনা করতে আসে। তাদের খুব অসুবিধা হয়। তাই উত্তরবঙ্গে আর্ট কলেজ হওয়া প্রয়োজন। ওখানে অনেক জমি জমা অনেক আছে। ওখানে রেসিডেন্সিয়াল আর্ট কলেজ হওয়া দরকার।

যোগেনবাবু আরও জানিয়েছেন, এই প্রসঙ্গে রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গেও তার কথা হয়েছে। করোনাভাইরাসের কারণে সব কিছু হঠাৎ থমকে না গেলে, এতদিনে কাজ কিছুটা হলেও এগিয়ে যেতো। কিন্তু এখন অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। যোগেনবাবু বলেন, উত্তরবঙ্গে আর্ট কলেজের জন্য ১০-১৫ একরের জমি চিহ্নিত করতে হবে। তারপর রাজনৈতিক স্তরের নেতাদের সঙ্গে প্রয়োজনীয় আলোচনা করতে হবে। একটা বিরাট ক্যাম্পাস প্রয়োজন। এবং সেখানে শুধু পেন্টিং নয়, তার পাশাপাশি ডিজাইন, আর্কিটেকচারের মতো বিষয়েও শিক্ষা দান করতে হবে। কিন্তু সরকারের কাছে এখন টাকা নেই। সেটা একটা বড় সমস্যা।

সমস্যা অনেক রয়েছে ঠিকই, তবে হাল ছাড়তে রাজি নন যোগেনবাবু। তিনি বলেন, করোনা সমস্যার সমাধানের পর বিষয়টি নিয়ে তিনি ফের সক্রিয় হবেন। উত্তরবঙ্গে আর্ট কলেজের বিষয়ে তিনি আলোচনা করবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here