কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের জন্য হওড়ায় বিলাসবহুল ভিলা সরকারকে দিতে চান প্রবাসী বাঙালি

1
219

দৈনিক কলকাতা ডেস্ক

করোনাভাইরাস বর্তমানে সমগ্র বিশ্বে আপৎকালীন পরিস্থিতি তৈরি করেছে। থমকে গিয়েছে জনজীবন। বিশ্বের অধিকাংশ দেশে চলছে লকডাউন। কোভিড-১৯ এর কারণে ভারতে প্রথমে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়, যা গত ১৪ এপ্রিল শেষ হওয়ার কথা ছিল। যদিও পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় এই লকডাউনের সময়সীমা বর্ধিত করা হয়েছে। নয়া ঘোষণা অনুযায়ী, আগামী ৩ মে উঠবে লকডাউন।

দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার ফলে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছেন গরীব মানুষ। দিন আনা, দিন খাওয়া মানুষরা লকডাউন ঘোষণার পর থেকে কাজে যেতে পারছেন না। দুবেলা দুমুঠো খাবার জোগাড় করতেই তাদের দিশাহার অবস্থা। কেন্দ্রীর সরকার এবং রাজ্য সরকারের তরফ থেকে এই অসহায় মানুষদের সাহায্য করার জন্য ইতিমধ্যে তহবিল ঘোষণা করা হয়েছে। সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন ক্রিকেটার, ফুটবলার, অভিনেতা, সেলিব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষ। এই তালিকায় এবার যোগ দিলেন এ রাজ্যেরই এক বাসিন্দা। ইকবাল হুসেন কাজি কর্মসূত্রে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে থাকেন। ২০০৯ সালে নিজের হাতে গড়া সংস্থা এখন ছুটছে সাফল্যের সরণীতে। তবে এই দুর্দিনে দেশের মানুষের পাশে দাঁড়াতে তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করছেন। ইতিমধ্যে ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিনি অর্থ সাহায্য করেছেন। কেরলের চালকুড়িতে লকডাউনে বিপাকে পড়া সুন্দরবনের ৬ যুবকের অ্যাকাউন্টে তিনি সম্প্রতি ৬,০০০ টাকা দিয়েছিলেন। এছাড়া তার উদ্যোগে দেশের বিভিন্ন অংশে লকডাউনে বিপাকে পড়া মানুষকে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

ভিলার একটি বেডরুম। নিজস্ব চিত্র।

এবার হাওড়ার বাগনানের এনডি ব্লকে তার বিলাসবহুল তিন তলা ভিলা কোয়ারেন্টাইনের কাজে সরকারের হাতে তুলে দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করলেন ইকবাল। বিলাসবহুল ভিলাতে গার্ডেন, এসি, সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারি সহ সমস্ত ব্যবস্থা রয়েছে। দৈনিক কলকাতাকে এক সাক্ষাৎকারে ইকবাল বলেন, কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের জন্য সরকারের যদি এটা দরকার হয়, তাহলে আমি তা দিয়ে দেওয়ার জন্য প্রস্তুত। কোভিড-১৯ নিয়ে তৈরি হওয়া বর্তমানে এই পরিস্থিতিতে আমি সরকারের সঙ্গে হাত মিলিয়ে লড়াই করতে চাই। এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, যারা বিদেশে রয়েছেন, অর্থাৎ অনাবাসী ভারতীয়, তাদের অনেকেরই দেশে একাধিক ফ্ল্যাট, বাড়ি, বাংলো ইত্যাদি রয়েছে। এই দুর্দিনে তাদেরও এগিয়ে আসা উচিত। আমরা প্রত্যেকে দেশে পড়াশুনা করেছি। এখন বিদেশে টাকা রোজগার করছি। তবে এই সঙ্কটের প্রহরে আমাদের সবারই দেশের পাশে দাঁড়ানো উচিত।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ইতিমধ্যে বিশ্বে প্রায় দেড় লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২৪ লক্ষ। এই মারণ ভাইরাসে ভারতে ৫১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১৬,০০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। কোভিড-১৯ এর প্রভাব পড়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। শেষ আপডেট অনুযায়ী, এরাজ্যে করোনাভাইরাসে এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩১০।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here